বুধবার, ২৪ জুলাই ২০২৪, ০৫:২৭ অপরাহ্ন

গ্রীল কেটে ঘরে প্রবেশ : হাটহাজারীতে সবার হাত পা বেঁধে দুধর্ষ ডাকাতি ,

হাটহাজারী (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি / ২২৫ Time View
Update : শনিবার, ৯ মার্চ, ২০২৪, ১০:৫৯ অপরাহ্ন

স্বর্ণালংকার ও নগদ টাকাসহ ৭ লক্ষাধিক টাকার মালামাল লুট

চট্টগ্রামের হাটহাজারী উপজেলার চিকনদন্ডী ইউনিয়নের বড়দিঘীর পূর্বদিকে ফকিরপাড়ার ব্যবসায়ী শহীদুল ইসলামের (৪৭) ঘরে দুধর্ষ ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে। শুক্রবার (৮ মার্চ) দিবাগত রাত তিনটার দিকে এ ঘটনা ঘটে। সশস্ত্র ডাকাত দল দোতলা বাড়ির পেছনের গ্রিল কেটে ঘরে ঢুকে বাড়ির গৃহকর্তাসহ নারী পুরুষ সকলের হাত পা বেধেঁ রেখে স্বর্ণালংকার নগদ টাকা ও অন্যান্য মালামাল সহ ৭ লক্ষাধিক টাকার মালামাল লুট করে নিয়ে গেছে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবার সুত্রে প্রকাশ । শনিবার ভোররাতে টহল পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। শনিবার সন্ধ্যা ৭টায় এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত থানায় কোন মামলা হয়নি বলে থানা সুত্রে প্রকাশ। শনিবার (৯ মার্চ) বিকেলে ঘটনাস্থলে পরিদর্শনকালে ডাকাতির বিষয়টি সাংবাদিকদের নিশ্চিত করেন ব্যবসায়ীর ছোট ভাই কোরিয়ান ইপিজেডে কর্মরত পেশায় মার্চেন্ডাইজার মো: জাহেদুল ইসলাম (৩৯)। তিনি বলেন, শুক্রবার দিবাগত রাত ৩টার দিকে আমাদের বিল্ডিংয়ের পেছনে রান্নাঘরের জানালার গ্রীল কেটে ডাকাতদল ঘরে প্রবেশ করে প্রথমে আমার বড় ভাবীকে অস্ত্র ও কিরিচের ভয় দেখিয়ে হাত বেঁধে ফেলে। তারপর ওনার বড় ছেলেকে হাত ও পা বেঁধে আলমারি খুলে প্রায় ৫০ হাজার টাকা, ৮টি স্মার্ট ঘড়ি যার মূল্য প্রায় ৪৫ হাজার টাকা, ২ ভরি স্বর্ণালংকার নিয়ে যায়। তিনি আরও বলেন, মাস্ক পরা ৫/৬ জন যুবক ঘরে প্রবেশ করে তাদের বয়স ৩০/৩৫ বছর হবে। তবে তাদের কথায় যা বুঝতে পারলাম সবার বাড়ি চট্টগ্রামের বাইরে। তারা আমাদের ঘরে ৩টার দিকে প্রবেশ করে প্রায় ১ ঘন্টা ১৫ মিনিট পর্যন্ত ছিল। ডাকাত দল ৪টা ৩০ মিনিটের দিকে বেরিয়ে যাওয়ার পরে আমি হাটহাজারী মডেল থানায় ফোন করলে থানার এএসআই জাকির পুলিশ ফোর্স নিয়ে আমাদের ঘরে এসে সব কিছু ঘুরে দেখেন। এ ঘটনায় থানায় মামলা করেছেন কিনা জানতে চাইলে জাহেদ বলেন আমরা নিরীহ মানুষ এসব মামলা করে কি হবে, যা হওয়ার তা তো হয়ে গেছে। বাড়িক গৃহকর্তা ব্যবসায়ী শহিদুলের স্ত্রী সীতারা হাকিম (৪৩ বলেন, ৫ জন সশস্ত্র ডাকাত ঘরের পেছনে জানালার গ্রীল কেটে প্রথমেই আমার রুমে আসে এবং একটি অস্ত্র ও ছুরি ধরে আমাকে চিৎকার করতে নিষেধ করেন। তারপর আমাকে এবং আমার বড় ছেলের হাত ও পা বেঁধে ফেলে। এসময় ডাকাতদল আমার আলমারি থেকে ১৫ হাজার টাকা ও ৬টি স্মার্ট ঘড়ি নিয়ে নেন। এরপর ডাকাতদল অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে দোতলায় আমার দেবর জাহেদের ফ্লাটের দরজা খোলায়। আমার ডাকে দেবর তার রুমের দরজা খোলে দেয়। তখনই ডাকাতরা রুমে গিয়ে দেবর জাহেদ এবং তার স্ত্রীর হাত বেঁধে ফেলে। এরপর তার আলমারি থেকে ৫ ভরি স্বর্ণালংকার, দুইটি স্মাট ঘড়ি, ২৫ হাজার নগদ টাকা লুটে নেয়। স্বর্ণালংকারের মধ্যে গলার সেট, কানের দূল, আংটি ও নেকলেস ছিলো। এসময় ডাকাতদল আমার দেবরের ছোট ছেলের ঠান্ডা লাগলে তাকে কম্বল গায়ে দিয়ে দেয়। আমার শাশুড়ীর পানির পিপাসা লাগলে তাকে পানিও খাওয়ায় দেন। হাটহাজারী মডেল থানার এএসআই জাকির শনিবার বিকাল ৪টার দিকে ঘটনাস্থলে জানান, বাড়ির মালিক জাহেদ ভাই আমাকে ফোন করার সাথে সাথে আমি ও ওসি তদন্ত নুরুল আলম স্যার ভোররাতে এসে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। সব কিছু দেখেছি এবং ওসি স্যার কে এ বিষয়ে জানিয়েছি। জানাতে চাইলে হাটহাজারী মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি ) মনিরুজ্জামান শনিবার সন্ধ্যা সোয়া ৭ টার দিকে জানান, এ বিষয়ে খোঁজ নিয়ে তিনি আইনানুগ ব্যব¯’া নেবেন।

 


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category