বুধবার, ২৪ জুলাই ২০২৪, ০৫:৫১ অপরাহ্ন

পল্লবীতে এক মাদক ব্যবসায়ীর রহস্যজনক আত্মহত্যা

মাজেদুল ইসলাম / ২০৫ Time View
Update : বুধবার, ২৬ জুলাই, ২০২৩, ২:১৭ অপরাহ্ন

রাজধানী মিরপুর পল্লবীতে রহস্যময় মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে। পল্লবী থানার পুলিশের মাদকবিরোধী বিশেষ অভিযান চলা কালীন বৈশাখী নামে এক তরুণের মৃত্যু হয়। পল্লবী থানার আদর্শ নগর ১১ নাম্বার রোডে ২১ নাম্বার বাসায় এই ঘটনা ঘটে। সেখান থেকে মাদকসহ চোরাকারবারের অভিযোগে লাভলী নামে এক নারীকে আটক করা হয়। এতে বাধা দেয় ওই নারীর কিশোরী মেয়ে বৈশাখী। পুলিশের হাত থেকে মাকে ছাড়িয়ে নিতে একপর্যায়ে বাসার ভেতর ওই কিশোরী আত্মহত্যা করে।ঘটনার বিষয়ে জানতে চাইলে নিহত বৈশাখীর বড় মো. আতাউর রহমান বলেন, ‘আমার মা লাভলীর বিরুদ্ধে গাঁজার ব্যবসার অভিযোগ করে পুলিশ। থানায় তাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগ রয়েছে। সেই অভিযোগে পল্লবী থানার পাঁচ পুলিশ ও তিন-চারজন সোর্স ৫ লাখ টাকা দাবি করেন। টাকা না দেওয়ায় লাভলীকে পুলিশ মারধর করে। এ সময় আমার বোন বৈশাখী তার মাকে পুলিশের কাছ থেকে ছাড়িয়ে নিতে আত্মহত্যার হুমকি দেয়।’
তিনি আরও বলেন, পাশের রুমে পুলিশ মাকে আটকালে ওই রুমের মধ্যে গলায় দড়ি দিয়ে সে আত্মহত্যা করে। এ ঘটনার পর এলাকাবাসী ওই পাঁচ পুলিশকে এবং সোর্সকে দুই থেকে তিন ঘণ্টা আটকে থানায় খবর দেয়। পরে থানা থেকে ৪০-৫০ জন পুলিশ এসে এলাকার লোকজনকে মারধর করে অভিযানে আসা পাঁচ পুলিশকে ছাড়িয়ে নিয়ে যায়।জানতে চাইলে মিরপুর বিভাগের উপপুলিশ কমিশনার (ডিসি) জসীম উদ্দিন মোল্লা বলেন, পল্লবী থানার একটি টিম মাদক উদ্ধারে ঘটনাস্থলে যায়। লাভলী নামের এক নারীর কাছ থেকে ইয়াবা ও ২ কেজি গাঁজা উদ্ধার করে পুলিশ। তাঁকে নিয়ে বাসা থেকে নেমেও আসতে চায় পুলিশ। এ সময় ওই নারীর মেয়ে আত্মহত্যার হুমকি দিয়ে পুলিশকে বাধা দেয়।মিরপুর বিভাগের ডিসি বলেন, একপর্যায়ে মেয়েটি মৃত্যুর অ্যাক্টিং করতে গিয়ে মেয়েটি আত্মহত্যা করে । পরে এলাকাবাসী ওই মেয়েটিকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নেয়। সেই ভিডিও ফুটেজ স্থানীয়দের কাছে আছে। এ ছাড়া লাভলীর কাছে যে মাদক উদ্ধারের অভিযান সেই ফুটেজটাও আমাদের কাছে আছে। এ জন্য ৪ সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করে ঘটনার বিস্তারিত তদন্ত করা হবে। তিনি আরও বলেন, লাভলীর বিরুদ্ধে একাধিক মাদক মামলা রয়েছে। নিহতের বাবা তাঁর মেয়ের আত্মহত্যার বিষয়ে একটি ইউডি মামলা করবেন। এ ছাড়া মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনেও একটি মামলা হবে।খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, নিহত ওই কিশোরীর লাশ এখনো সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালে রয়েছে। এখন পর্যন্ত এ ঘটনায় কোনো মামলা হয়নি। শেষ পর্যন্ত ওই নারীকেও আটক করেনি পুলিশ। বর্তমানে তিনি বাসায় অবস্থান করছেন। প্রকৃত ঘটনা আড়াল করার অ্যাক্টিং করতে গিয়ে পল্লবীতে মাদকের ৪ মামলার আসামীর আত্মহত্যা।
গত পরশু রাতে পল্লবী থানা এলাকায় আদর্শ নগর কুখ্যাত মাদক ব্যবসায়ী লাবলির মেয়ে বৈশাখী পুলিশের উপর অভিমান করে আত্মহত্যা করার খবর পাওয়া গেছে। তথ্য অনুসন্ধানের জানা যায় আব্দুর রহমান মিন্টু গাঁজা ব্যবসায়ীর সাথে ২০২১ সালে বিবাহ হয়। বিয়ের আগের থেকেই বৈশাখী ইয়াবা আসক্ত ছিল। ইতিপূর্বে স্বামীর সাথে অভিমান করে গলায় রশি নিয়েছিল বলে এলাকাবাসী জানান। এলাকাবাসী বলেন বৈশাখের মা লাভলী এলাকার বিখ্যাত মাদক ব্যবসায়ী তার মেয়ে চাঁদনী দীর্ঘদিন ধরে এলাকায় মাদক ব্যবসা চালিয়ে আসছে। লাভলিন নামে পল্লবী থানায় সাতটি মামলা রয়েছে মাদকের। আব্দুর রহমান মিন্টন নামে একাধিক মাদক মামলা রয়েছে। বৈশাখীর নামেও পল্লবী থানায় চার চারটি মাদক মামলা রয়েছে। যার নাম্বার ১৫, তারিখ ৭/৭/২০২২,,৭৪;’২৯/১/২০২৩, মামলা ৬৩,২৩/১১)২২ এছাড়া বিভিন্ন ধরনের মামলা রয়েছে! রাত ৯ টার দিকে নিজ বাসায় গলায় ফাঁস নেয়া আত্মহত্যা করেছে বলে জানা যায়। লাশ উদ্ধার করতে আসা পল্লবী থানা পুলিশের উপর মাদক ব্যবসায়ীরা পুলিশের উপর হামলা চালিয়ে মোটরসাইকেল গাড়ি ভাঙচুর করে ডিউটি রত পুলিশের হামলা চালিয়ে আহত করে। এই ঘটনায় পল্লবী থানায় একটি মামলা হয়েছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category