শুক্রবার, ০১ মার্চ ২০২৪, ০১:৪৭ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
Logo বেইলি রোডে অগ্নিকাণ্ড:উদ্ধার অভিযানে র‍্যাবের সাহসী ভূমিকা পালন Logo বসুন্দিয়ায় বায়নাকৃত জমি রেজিষ্ট্রি না করে দিয়ে জমির ক্রেতার সাথে প্রতারণা। Logo বিপিএম-পিপিএম পেলেন ৩৬ এসপি Logo র‍্যাবের ৫০ কর্মকর্তা/ সদস্য বিপিএম-পিপিএম পদক পাচ্ছেন Logo মিয়ানমার সীমান্তে আর পূর্বের মত পরিস্থিতি উদ্ভব হবে না, প্রত্যাশা পররাষ্ট্রমন্ত্রীর Logo যুবলীগ নেতার মামলায় যুব মহিলা লীগ নেত্রী গ্রেফতার Logo আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির শ্রদ্ধাঞ্জলি অর্পণ Logo সাংবাদিক লায়েকুজ্জামান আর নেই Logo রোটারী ঢাকা ক্লাব রাইজিং স্টারস ক্লাবের দিনব্যাপী ব্যতিক্রমী সফর Logo মিরপুর বিআরটিএ অফিসে অভিযান,আটক ১

পটুয়াখালীর ছোট বাইশদিয়ার চেয়ারম্যান কামালপাশা’র বিরুদ্ধে চাল বিতরণে অনিয়ম ও আত্মসাতের অভিযোগ 

মোঃ কামরুজ্জামান হেলাল / ১২৯ Time View
Update : শুক্রবার, ২০ অক্টোবর, ২০২৩, ৯:৪০ অপরাহ্ন

পটুয়াখালী জেলার রাঙ্গাবালীর ছোটবাইশদিয়া ইউপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান’র বিরুদ্ধে  ভিজিএফ মৎস্য চাল বিতরণে অনিয়ম, আত্মসাৎর বিষয়ে একাধিক দপ্তরে অভিযোগ দিয়েছেন উক্ত পরিষদের সচিব।তাছাড়াওউক্ত অভিযোগপত্রে উল্লেখ করা হয়েছেএ     সচিবের সাথে একই পরিষদের দফাদারের উদ্বতপূর্ন আচরন করার কথা।উক্ত অভিযোগ পত্রওসুত্রে জানা গেছে,গত১৮অক্টোবর বুধবার সকাল১০টায় ছোট বাইশদিয়া ইউনিয়নপরিষদের সংশ্লিষ্টদের সহায়তায় চেয়ারম্যানের সিদ্ধান্ত মোতাবেক রাঙ্গাবালী উপজেলা খাদ্য গোডাউনের সম্মুখে বসে ভিজিএফ মৎস্য চাল বিতরণ শুরু করা হয়।উক্ত চাল বিতরণের এক পর্যায়ে কিছু সংখ্যক কার্ডধারী জেলে উক্ত খাদ্য গোডাউনের সম্মুখে উপস্থিত থাকা সত্ত্বেও তালিকার সকল জেলের নামের বরাদ্দ হয়েছে মর্মে প্রচার করেএ দিন দুপুর২টার সময় চেয়ারম্যানের একক সিদ্ধান্তে এ চাল বিতরণ বন্ধ করে দেওয়া হয়।কারণ উপস্থিত ট্যাগ অফিসার শেষের দিকে উক্ত চাল বিতরণ কার্যক্রমে উপস্থিত না থাকায়। তখনএপরিষদের সচিব উক্ত খাদ্য গোডাউন থেকে সন্নিকটস্থ৩নং ছোট বাইশদিয়া ইউনিয়ন পরিষদে পায়ে হেটে চলে আসার সময় অনেক কার্ডধারী জেলে চালের জন্য তাঁর কাছে অনুনয়-বিনয় করলে তিনি তাদের চেয়ারম্যানের নিকট যোগাযোগ করার পরামর্শ দেয়।পরে  সচিব পরিষদ হয়ে নিকটস্থ বাজারের হোটেলে দুপুুরের খাবার খেতে যায়।এরপর তিনি ভাত খেয়ে পরিষদেএসে স্টক রেজিস্ট্রার লিপিবদ্ধ করার জন্য চাল বিতরণের বিষয় চেয়ারম্যান ও দফাদারের নিকট বিস্তারিত জানতে চেয়ে আইনগত অগ্রহণযোগ্য তথ্য না পেয়ে রাঙ্গাবালী উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক (অ,দা)ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার মুঠোফোনে তাৎক্ষণিক ঠিক দুপুর২টা৫৩মিনিটের সময় কল দেয় সে চাল বিতরণের অনিয়মওআত্নসাতের বিষয়টি নিশ্চিত হয়।এসময় উক্ত পরিষদের সচিব কেএ উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক(অ,দা)ফোন আলাপে জানায় প্রথমে১২৬০বস্তা চাল গোডাউন থেকে নামানো হয়েছে।পরে আরো৯৭ বস্তা চাল নামানো হয়েছে।এতে এসময় সর্বমোট ১২৬০+৯৭=১৩৫৭ বস্তা চাল(৩০কেজির বস্তার)যার সর্বমোট পরিমাণ হয়৪০৮০০কেজি চাল।কিন্তু ভিজিএফ মৎস্য চালের ডিও হয়েছে এপরিষদের ৫০,২০০ টন,অর্থাৎ৫০২০০ কেজি চাল।পরবর্তীতে সচিব উক্ত দফাদাকে আবারও বিষয়টি অবগত করলে সে অস্বীকার করলে সচিব তাঁর ফোনের রেকর্ড শুনালে দফাদার অগ্নিশর্মা হয়ে উঠে এবংসচিব কে বলেন ” আপনি কি সাংবাদিকের ভূমিকা নিলেন নাকি” উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক(অ,দা)এর নিকট ফোন দেন।”এরকম সে তাদের মত৮-১০সচিব দেখেছি”পরে সচিব তাঁর কক্ষে দাপ্তরিক কাজ করতে থাকেন।এর কিছুক্ষন পর কিছু সংখ্যক অজ্ঞাত লোক পরিষদের সম্মুখে এসে সচিব কে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ ও মারধরের হুমকি দেয়।এসময়ে শুধু মাত্র দফাদার ওসচিব পরিষদে ছিলেন।এসময় অবস্থা বেগতিক দেখে অন্য কোন উপায়ন্ত না পেয়ে সচিব চেয়ারম্যানের পূর্ব নির্দেশ মোতাবেক পরিষদের দফাদারের হাতে অফিসের চাবী দিয়ে তিনি দ্রুত পটুয়াখালীর উদ্দেশ্যে যাত্রা করেন।এসময় ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান রাগান্বিত অবস্থায় কার সাথে যেন ফোনে আলাপ ওপায়চারী করছিলেন।এছাড়াও ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানের যোগসাজসে দফাদারের বিরুদ্ধে অর্থনৈতিক অভিযোগও রয়েছে বলে উক্ত অভিযোগ পত্রে উল্লেখ করেছেনএ সচিব।এছাড়াও সুত্রে জানা গেছে,১৮অক্টোবর বুুুধবার দুপুরের পরে রাঙ্গাবালী উপজেলা খাদ্য গোডাউনের সামনে ছোট বাইশদিয়া ইউনিয়নের কোনও জেলে কে দেখাএবং চাল বিতরণের খবর পাওয়া যায়নি।তাছাড়া১৯ অক্টোবর বৃহস্পতিবার ও ছোট বাইশদিয়া ইউনিয়ন পরিষদ ও রাঙ্গাবালী খাদ্য গোডাউনের সামনে থেকে উক্ত পরিষদের ভি জিএফ মৎস্য চাল বিতরণ করার খবর পাওয়া যায়নি।এমনকি এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত উপরোক্ত হিসাব অনুযায়ী অবশিষ্ট চাল এ ইউনিয়ন পরিষদের গোডাউনে স্টক করা হয়েছে সে খবর ও পাওয়া যায়নি।সুত্রে আরও জানা গেছে,এপরিষদের সচিব উক্ত বিষয় নিয়ে নানা দপ্তরে অভিযোগ পত্র দেয়ার পরে তিনি আত্নংকে আছেন বলে সুত্রে জানা গেছে।

উক্ত বিষয়৩নংছোট বাইশদিয়া ইউনিয়ন পরিষদের সচিব মোঃ নজরুল ইসলাম’র কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন,তিনি সংশ্লিষ্ট দপ্তরে যে অভিযোগ পত্র দিয়েছেন তাতেই বিস্তারিত উল্লেখ করা হয়েছে।এবিষয়৩নংছোট বাইশদিয়া ইউনিয়ন পরিষদের দফাদার মোঃহাবিব মুঠোফোনে বলেন,সচিব এখানে থাকতে চান না,তাই তিনি সহজ-সরল একজন জনপ্রতিনিধির বিরুদ্ধে অভিযোগ দিয়েছেন।৩নংছোট বাইশদিয়া ইউনিয়ন পরিষদের ট্যাগ অফিসার মাহামুদুল হাসান’র এর মুঠোফোনেএব্যাপারে জানতে চাইলে তিনি বলেন,চেয়ারম্যান,সচিব,ইউপি সদস্য বৃন্দ ও গ্রাম পুলিশদের উপস্থিতিতে চাল বিতরণ করা হয়েছে,কোথায় অনিয়ম হয়েছে তা তাঁর জানা নেই।ছোট বাইশদিয়া ইউনিয়ন পরিষদের  ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান কামাল পাশা’র মুঠোফোনে কল দিয়েএ ব্যাপারে জানতে চাইলে তিনি বলেন,পরিষদে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পাওয়া টা সহজ হয়নি,অন্যান্য ইউপি সদস্যগন সব সময় তাঁর বিষয় চোখ -কান খোলা রেখে তাদের দায়িত্ব পালন করেন,সে জন্য বিন্দু মাত্রও অনিয়ম করার চিন্তাওতাঁর মাথায় আসে না,সচিব কোথা থেকে কি ভাবে দুপুরের আগে খবর নিয়েছেন,দুপুরের পরের  খবর কি তিনি নিয়েছেন,তিনি যে বিষয় অভিযোগ দিয়েছেন তা ছোট বাইশদিয়া ইউনিয়নে এসে আপনারা খোঁজ খবর নিয়ে সত্যতা যাচাই করুন।এ কথা বলে তিনি মুঠোফোনের সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেন।এ বিষয় মুঠোফোনে জানতে চাইলে রাঙ্গাবালী উপজেলা নির্বাহী অফিসার মিজানুর রহমান  জানান,৩নংছোট বাইশদিয়া ইউনিয়ন পরিষদের সচিব মৌখিক অভিযোগ দিয়েছেন তাঁর কাছে,সে প্রমান সহ অভিযোগ দিক,তাহলে তদন্ত করে বিষয় টি তিনি দেখবেন।এই বলে তিনি মুঠোফোনের সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category